মতলবে অবৈধভাবে খাল থেকে বালু উওোলন।

অবৈধ ভাবে নদী, খাল বিল থেকে বালু উত্তোলন নিয়ে সংবাদমাধ্যমে অনেক খবর দেখা যায়। অবৈধ বালু উত্তোলন ক্ষতিকর-এ ব্যাপারে মোটামুটি সবাই একমত। কিন্তু তার পরও ক্ষতিকর প্রভাব জেনেও বন্ধ হচ্ছে না বালু তোলা। অবৈধভাবে বালু তোলার ফলে আমাদের প্রাকৃতিক পরিবেশে পড়েছে ক্ষতির সম্মুখীন এবং বাধ নষ্ট হচ্ছে।

 
মতলব উত্তরের মান্দার তলী গ্রামের বেপারি বাড়ির পাশ দিয়ে ছোট্ট একটি খাল বয়ে গেছে। সেখান থেকে গত দুই বছর আগে বালু উওলোন করে বিক্রি করেন কিছু প্রভাবশালী লোক। ক্ষমতার অপব্যবহার করে প্রভাবশালী লোকেরা বালু তোলার ফলে খালের সাথে মানুষের যাতায়াতের রাস্তা বেংগে যায়। খালের পাশের বাড়ির অনেক ক্ষতি হয়েছে। এখন আবার তারাই বালু উওোলন শুরু করে বিক্রি করছের। তাদের ক্ষমতার অপব্যবহার কারনে দুই পারের মানুষের জমি ক্ষতির মুখে।


বাংলাদেশের ক্ষেত্রে ২০১০ সালের বালুমহাল আইনে বলা আছে, বিপণনের উদ্দেশ্যে কোনো উন্মুক্ত স্থান, চা-বাগানের ছড়া বা নদীর তলদেশ থেকে বালু বা মাটি উত্তোলন করা যাবে না। এ ছাড়া খাল, সেতু, কালভার্ট, ড্যাম, ব্যারাজ, বাঁধ, সড়ক, মহাসড়ক, বন, রেললাইন ও অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ সরকারি-বেসরকারি স্থাপনা অথবা আবাসিক এলাকা থেকে বালু ও মাটি উত্তোলন নিষিদ্ধ। কিন্তু বাংলাদেশে বাড়ি, রাস্তা, ব্রিজসহ যেকোনো ধরনের কংক্রিট নির্মাণসংক্রান্ত অবকাঠামো সম্পূর্ণ বৈধ বালু দিয়ে করা হয়েছে বলে কেউ দাবি করতে পারবে না। খাল থেকে অবৈধভাবে বালু তোলার বিষয়টি মতলব এর এমপি মহোদয় এবং প্রশাসন এর নজরে আনার অনুরোধ করছি তাহলে নিরীহ মানুষের প্রানে বাঁচবে।

Post a Comment

0 Comments