মতলবের গর্ব জেনারেল আজিজ আহমেদ দায়িত্ব পালনের দুই বছরে কি পেল দেশবাসী

২০১৮ সালের ২৫ জুন বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রধান হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেন জেনারেল আজিজ আহমেদ। উনার বাড়ি চাঁদপুর জেলার মতলব উওর উপজেলার টরকী গ্রামে। দায়িত্ব নেয়ার পরই তাকে কঠিন এক চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হয়। সবদলের অংশগ্রহণে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠানের বড় এক চ্যালেঞ্জেও উত্তীর্ণ হন।



ওই বছরের ৩০ ডিসেম্বরের ভোটের আগে অনেক শঙ্কা-অঘটন আর উৎকন্ঠার চাদরকে তুড়িতে উড়িয়ে ভোটারদের নির্ভয়ে ভোটদেওয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন সেনাপ্রধান। দেশের স্বাধীনতার পর এবারই প্রথম কোন রকম সহিংসতা ছাড়াই শান্তিপূর্ণভাবেসংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সেনাবাহিনী নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করায় মানুষ আশ্বস্ত হয়ে ভোট দিয়েছে। ভোটে গণতান্ত্রিক রায়ে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তিরবিজয় অর্জিত হয়।

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে শুরু থেকেই কিছু ‘মাস্টার স্ট্রোক’ খেলেছেন। গুরুত্বপূর্ণ একটি সময়রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নিয়ে সামরিক কূটনীতিতে কাজ করেছেন। ২০১৯ সালের ০৪ নভেম্বর থেকে ০৭ নভেম্বর পর্যন্ত সেনাপ্রধানচীন সফর করেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে কোভিড-১৯ মহাদুর্যোগ শক্ত হাতে সামাল দিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে দেশের প্রতিটি জেলায় বেসামরিক প্রশাসনকে সহযোগিতার পাশাপাশি সাধারণ মানুষের দোরেদোরে গিয়ে সতর্ক প্রচারণা চালিয়েছেন সেনারা।

দুর্যোগের ক্যালেন্ডারের পাতায় দগদগে ক্ষত সৃষ্টি করা দু’টি ঝড়- বুলবুল, ফণী ও সর্বশেষ সুপার সাইক্লোন আম্পান মোকাবেলাকরেছেন সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদের নেতৃত্বে সেনাবাহিনী।

জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে দীর্ঘ সময় পর ইথিওপিয়া পেছনে ফেলে আবারও এক নাম্বারে ওঠে আসার গৌরবগাঁথার অধিকারীহওয়ার সময়টিও ফিরে এসেছে তাঁর সময়েই। স্বাভাবিকভাবেই এ কৃতিত্বও ধরা দিয়েছে সেনাপ্রধানের ঝুলিতে।

প্রতিবেশী হিসেবে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর সঙ্গে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ‘স্ট্র্যাটেজিক সম্পর্ক’ স্থাপন গোটা দুনিয়ায় দৃষ্টিআকর্ষণ করে। এ সফরকে ইতিবাচক হিসেবেই অভিহিত করে বিশ্বের নামি অনেক আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম।

একই সঙ্গে সড়ক ও স্থাপনা নির্মাণ, মাইন অপসারণ, সুষ্ঠু নির্বাচনে সহায়তার মাধ্যমে বাংলাদেশের শান্তিরক্ষীরা ব্যাপক সুনামঅর্জন করেছেন।

সর্বশেষ সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাকলিকে কয়েক সপ্তাহ আগে ২৭৫ জনের একটি কনটিনজেন্ট বাংলাদেশ থেকে সেখানে পৌঁছে।এর মাধ্যমে হারানো গৌরব আবারও পুনরুদ্ধার করে বাংলাদেশ। নি:সন্দেহে জেনারেল আজিজ আহমেদের সেনাপ্রধানেরজামানায় এ এক অনন্য প্রাপ্তি।


Post a Comment

0 Comments