মতলব উত্তরের কৃতি সন্তান গীতিকার রবিউল আউয়াল লেখা গানে গাইলেন পাকিস্তানের রাহাত ফতেহ আলী

মতলব উত্তরের কৃতি সন্তান বর্তমান সময়ের আলোচিত গীতিকারদের মধ্যে একজন রবিউল আউয়াল। উনার বাড়ি মতলব উওর উপজেলার লুধুয়া গ্রামে। সাম্প্রতিক তার কথায় প্রকাশিত হয়েছিল উপমহাদেশের জনপ্রিয় কিংবদন্তি কন্ঠশিল্পী ওস্তাদ রাহাত ফতেহ আলী খানের গাওয়া প্রথম বাংলা গান 'তোমারই নাম লেখা'। এই গানটির সুর ও সঙ্গীতায়োজন করেন পাকিস্তানি সঙ্গীত শিল্পী সালমান আশরাফ। প্রকাশিত এই গান নিয়ে সঙ্গীত জগতে জন্ম দেয় নতুন আলোচনার।


এছাড়াও প্রকাশিত হয় ডজনখানেক গান। পাকিস্তানি সঙ্গীত শিল্পী সালমান আশরাফ এর কন্ঠে তারই সঙ্গীতায়োজনে প্রকাশিত হয় পান্ডুলিপি শিরোনামের একটি গান। অসংখ্য গানের গীতিকার ও সুরকার এবং শিল্পী গড়ার কারিগর মিল্টন খন্দকারের সুরে ইউসুফ রায়হানের কন্ঠে মরণ এবং মা শিরোনামে দুটি গান। গানচাষী খ্যাত সঙ্গীত শিল্পী প্লাবন কোরেশীর সুরে মিতুর কন্ঠে কপাল পোড়া। 

২১শে ফেব্রুয়ারি শিরোনামে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে প্রকাশিত হয় ভাষার গান। মুঞ্জুরুল ইসলামের কন্ঠে গানটির সুর করেন রবিউল ইসলাম অবিনাশ এবং সঙ্গীতায়োজন করে এরফান টিপু। সাদমান সৌমিক জ্যোতির সুরে মিতু ও সুমনের ভালবাসার দাম। মুঞ্জুরুল ইসলামের কালবৈশাখী, পরানের সুর ও কন্ঠে মন ভোলা, ভাগ গুন শূন্য, পোড়ামন, নষ্টালজিয়া, 

সর্বশেষ প্রকাশিত হয় থিম সং শিকড়ের টানে। ২০২০ সালে শিকড়ের টানে লুধুয়া উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের প্রাক্তন ছাত্রছাত্রীদের পুনর্মিলনী জন্য লেখেন এই থিম সং।


হাতে রয়েছে বেশ কিছু গানের কাজ যা ইতিমধ্যে কার্য- প্রক্রিয়াধীন। এই গানগুলো প্রকাশিত হবে ২০২০ সালের বিভিন্ন সময়। এস এ শাওনের কন্ঠে সমান্তরাল, দিন যেন বছর, পথশিশু। এস এ শাওন ও স্বর্ণার কন্ঠে আসবে একটি গান যার রেকর্ডিং সম্পন্ন হয়ে গেছে।

পরানের কন্ঠে মন ভোলা-২ এবং তার সুরে লাল গালিচা। মোমিন বিশ্বের কন্ঠে যতো দূরে এবং তোর-ই জন্যে। সোহেল রানার কন্ঠে তুমি আমার মন বুঝো না। মুঞ্জুরুল ইসলামের কন্ঠে বাঁ পাজর সহ আরও বেশ কিছু গান।

২০১৮ সালে কোটা অন্দোলনকে কেন্দ্র করে পরানের কন্ঠে কোটা কমাও শিরোনামের একটি গান লিখে সোসাল মিডিয়ায় বেশ আলোচনায় অাসেন এই তরুণ গীতিকার। তারপর নওরিন এবং এস এ শাওনের কন্ঠে তুমি চলে যেওনা, শামীম আশিকের ভাঙলে এই মন, পরানের গাঙচিল, সামিনা হকের ও পাখিরে, এবং দেশের গন্ডি পেরিয়ে প্রথম গান করেন পাকিস্তানি কন্ঠশিল্পী সালমান আশরাফ এর কন্ঠে এবং তারই সুর সঙ্গীতে আকাশের রংধনু। এইভাবে একের পর এক গান প্রকাশিত হয়ে আসছে এই তরুণ গীতিকার রবিউল আউয়ালের।

গীতিকার রবিউল আউয়াল বলেন, ২০১৯ বছরটি আমার জন্যে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কেননা, আমার কথায় প্রথম বাংলাদেশের গানে কন্ঠ দিয়েছেন উপমহাদেশের জনপ্রিয় কিংবদন্তি সঙ্গীত শিল্পী ওস্তাদ রাহাত ফতেহ আলী খান। এটা আমার জন্য অত্যন্ত গর্বের এবং গৌরবের। এর জন্যে কৃতজ্ঞতা ডাঃ রোকসানা আক্তার লিপি আপু এবং পাকিস্তানি সঙ্গীত শিল্পী সালমান আশরাফের কাছে।

এছাড়াও শিকড়ের টানে প্রাক্তন ছাত্রছাত্রীদের পুনর্মিলনী ২০২০ এর থিম সংটি আমাকে লেখতে দায়িত্ব দেয়ায়। কৃতজ্ঞতা জানাই পুনর্মিলনী প্রচার কমিটিকে, আমাকে এই সুযোগ দেয়ার জন্য। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আমার কথায় ২১ শে ফেব্রুয়ারি শিরোনামের গানটি আমার প্রশান্তির কর্ম বলে মনে করি। 

গান আমার পেশা নয় নেশা। আমি গানকে ভালবেসেই গান লিখি। শুদ্ধ গান লিখতে চেষ্টা করি। এজন্য শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতা জানাই উপমহাদেশের কিংবদন্তি গীতিকবি মোহাম্মদ রফিকউজ্জামান স্যারের কাছে। কারন, তারই পরিচালনায় বাংলাগান রচনাকৌশল ও শুদ্ধতা পাতায় থেকে শুদ্ধ গান লেখা শুরু করি এবং শিখি। অসংখ্য গানের গীতিকার মিল্টন খন্দকার এর গীতিকাব্য চর্চাকেন্দ্র এর একজন ছাত্র হয়ে শিখেছি এবং পেয়েছি অনেক পরামর্শ যা আমাকে অনুপ্ররেণা দেয়। ভালবাসা জানাই গীতিকার নীহার আহমেদ ভাইকে। তার অনুপ্ররেণা আমাকে এগিয়ে যেতে সাহায্য করে। আমার গানের সাথে জড়িত এবং সঙ্গীতের সাথে সম্পৃক্ত প্রত্যেকের প্রতি রইল আমার ভালবাসা। বাংলা গানকে ভালবাসি। বাংলা গানকে সমৃদ্ধি করতে নিজকে নিয়োজিত রাখতে চাই। ভাল গান শ্রোতাদের উপহার দিতে চাই।

Post a Comment

0 Comments