প্রিয় মতলবকে নিয়ে এবার কবিতা লিখলেন, মতলবেরই কৃতি সন্তান 'কাউসার আলম'

প্রিয় জন্মস্থান কে কেনা ভালোবাসে? জন্মস্থান এর প্রতি যে টান তা আর অন্য কিছুতে থাকেনা। নিজ জন্মস্থানকে কেনা রাঙাতে চায়? জন্মস্থান এর প্রতি ভালোবাসা রেখে কতো মানুষ কতো কিছুই না করে।



তাই এবার প্রিয় জন্মস্থানকে ভালোবেসে মতলবকে নিয়ে কবিতা রচনা করলেন মতলবেরই কৃতি সন্তান মোঃ কাউসার আলম। চাঁদপুরের মতলব প্রকৃতিক ভাবেই সৌন্দর্যের অপরুপ এক স্হান।

এছাড়াও সম্পূর্ণ কবিতায় তিনি নিজ জন্মস্থানের প্রতি তার ভালোবাসা, মতলবের প্রকৃতি ও সৌন্দর্য ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করেছেন।

কবিতার প্রতিটা লাইন প্রকাশ করে মতলবের জনগনের সরলতা ও ভালোবাসা। একটা মানুষ কীভাবে তার জন্মস্থানের প্রেমে পড়ে সেই চিত্রই ফুটে উঠেছে সম্পূর্ণ কবিতায়।

কবি পরিচিতি বলতে গেলে, মোঃ কাউসার আলমের জন্মস্থান মতলব উত্তরের লুধুয়া গ্রামে। তিনি জন্মগ্রহণ করেন ২০ এপ্রিল, ১৯৮৭ সালে। তিনি মাধ্যমিক পাশ করেন মতলবের ঐতিহ্যবাহী স্কুল জমিলা খাতুন উচ্চ বিদ্যালয় থেকে। স্নাতকোত্তর ডিগ্রী শেষ করেন চাঁদপুর সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ হতে। পেশা জীবনে একটি প্রাইভেট কোম্পানিতে কর্মরত আছেন।

শত ব্যস্ততা থাকলেও অবসর সময় লেখালেখি করে কাটাতে ভালোবাসেন কাউসার আলম। তারই ধারাবাহিকতায় আমরা পেলাম প্রিয় জন্মস্থানকে নিয়ে অপরুপ সুন্দর এ কবিতা।



পাঠকদের সুবিধার্থে সম্পূর্ণ কবিতাটি হুবুহু নিচে তুলে ধরা হলো -


আমাদের মতলব
মোঃ কাউসার আলম

মতলব এক অপরুপ ভূখন্ডের আখ্যা,
যখন মহানন্দে বর্ষাকাল আসে,
চারপাশ তার অথৈ জলে ভাসে,
প্রকৃতির ভূমিকাই দেয় তার ব্যাখ্যা।

নামের বানানেই তার সরলতা,
জলের রেখায় ঘেরা এ এক ভূমি,
ঘুমের ঘোরেও যার জলস্রোত শুনি,
আওয়াজে জানায় তার বিশালতা।

জল ও স্হল সব গুলো পথ-ই ভালো,
চারিপাশে জল তার মাঝখানে মাটি,
মাটি গুলো যেনো সোনার চেয়েও খাটি,
ভবিষ্যতে জ্বলবেই সম্ভবনার আলো।

যোগাযোগ ব্যবস্হা অতুলনীয় সুন্দর,
জালের মতো রাস্তাগুলোতে চলে গাড়ি,
জলযানেও দেয়া যায় লক্ষ্যে পাড়ি,
হতেও পারে একটা ব্যবসায়িক বন্দর।

প্রজ্বলিত হউক মতলবের এই আলোরন,
যেমনি আছে বুদ্ধিমান জ্ঞানী আর গুনি,
আছে কৃষক জেলে দিনমজুর আর রাঁধুনি,
আমরা গর্বিত ! আমরা মতলবের জনগন।

Post a Comment

0 Comments