রোমাঞ্চকর জয়ে শিরোপা জিতে নিলো লিভারপুল

রেকর্ড সাত ম্যাচ হাতে রেখে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে লিভারপুল। তাতে ফুরিয়েছে দীর্ঘ তিন দশকের অপেক্ষা। তবে বাকি ছিল শিরোপা নিয়ে উৎসব করা। চেলসির বিপক্ষে রোমাঞ্চকর জয়ের পর এলো সেই কাঙ্ক্ষিত মুহূর্ত। ইংল্যান্ডের শীর্ষ লিগের ট্রফি বুঝিয়ে দেওয়া হলো ইয়ুর্গেন ক্লপের দলকে।



বুধবার রাতে চেলসির বিপক্ষে ৫-৩ গোলে জিতেছে লিভারপুল। চলতি আসরে ঘরের মাঠে এটাই ছিল দলটির শেষ ম্যাচ। দুর্দান্ত জয়ের পর অলরেডদের কিংবদন্তি সাবেক খেলোয়াড় ও কোচ কেনি ডালগ্লিশ উত্তরসূরিদের দলনেতা জর্ডান হেন্ডারসনের হাতে তুলে দেন শিরোপা। তার অধীনেই ১৯৮৯-৯০ মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটি।

লিভারপুলের খেলোয়াড়রা ট্রফি উঁচিয়ে ধরতেই আতশবাজির রঙে লাল হয়ে ওঠে আকাশ। উদযাপন অবশ্য শুরু হয়ে গিয়েছিল ম্যাচ মাঠে গড়ানোর আগেই। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের মধ্যেই ভক্ত-সমর্থকরা জড়ো হয়েছিলেন অ্যানফিল্ডের আশেপাশে।

আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে ঠাসা ম্যাচের ২৩তম মিনিটে এগিয়ে যায় স্বাগতিকরা। উইলিয়ানের কাছ থেকে বল কেড়ে নেওয়ার পর কিছুটা এগিয়ে ২০ গজ দূর থেকে জোরালো শটে লক্ষ্যভেদ করেন নাবি কেইটা।

৩৮তম মিনিটে বাঁকানো ফ্রি-কিকে জাল খুঁজে নেন ট্রেন্ট আলেকজান্ডার-আরনল্ড। চেলসি গোলরক্ষক কেপা আরিজাবালাগার দর্শক হয়ে চেয়ে চেয়ে দেখা ছাড়া যেন আর কিছুই করার ছিল না!

লিগের আগের ম্যাচে আর্সেনালের কাছে হেরে যাওয়া লিভারপুল প্রথমার্ধের শেষ দিকে আরও একটি গোল করে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয়। ৪৩তম মিনিটে ডি-বক্সের ভেতরে মোহামেদ সালাহর কাছ থেকে বল পেয়ে দারুণ ভলিতে স্কোরশিটে নাম লেখান জর্জিনিয়ো ভাইনালডাম।

যোগ করা সময়ে চেলসির হয়ে ব্যবধান কমান অলিভিয়ের জিরু। উইলিয়ানের শট গোলরক্ষক অ্যালিসন ফিরিয়ে দেওয়ার পর ফিরতি প্রচেষ্টায় গোলপোস্টের খুব কাছ থেকে নিশানা ভেদ করেন তিনি।

বিরতির পর ম্যাচের ৫৫তম মিনিটে স্কোরলাইন ৪-১ করেন রবার্তো ফিরমিনো। ডানপ্রান্ত থেকে আলেকজান্ডার-আরনল্ডের ক্রসে মাথা ছুঁইয়ে এবারের লিগে অ্যানফিল্ডে নিজের প্রথম গোলটি করেন তিনি।

ম্যাচে নাটকীয়তার শুরু এরপরই। বড় জয়ের পথে এগোতে থাকা লিভারপুলের জালে ১২ মিনিটের ব্যবধানে দুবার বল জড়ায় অতিথিরা। ৬১তম মিনিটে বদলি ক্রিস্টিয়ান পুলিসিচের ক্রসে সহজ সুযোগ হাতছাড়া করেননি আরেক বদলি ট্যামি আব্রাহাম। ঝাঁপিয়ে পড়েও পরাস্ত হন অ্যালিসন।

৭৩তম মিনিটে পুলিসিচ নিজেই লক্ষ্যভেদ করলে উত্তেজনা ছড়ায় ম্যাচে। ক্যালাম হাডসন-ওডোইয়ের ক্রস বুক দিয়ে নামিয়ে দুটি ছোঁয়ায় নিয়ন্ত্রণে নেওয়ার পর মাপা শটে গোল করেন তিনি।

৮৪তম মিনিটে দলের পক্ষে পঞ্চম গোলটি করে লিভারপুলের জয় নিশ্চিত করেন বদলি অ্যালেক্স অক্সলেড-চেম্বারলেইন। পাল্টা-আক্রমণে অ্যান্ড্রু রবার্টসনের ক্রসে জালের ঠিকানা খুঁজে নেন তিনি।

এই জয়ে ৩৭ ম্যাচে লিভারপুলের পয়েন্ট বেড়ে হলো ৯৬। চারে থাকা চেলসির অর্জন ৬৩ পয়েন্ট। খালি হাতে মাঠ ছাড়ায় উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ঠাঁই পাওয়ার অপেক্ষা বাড়ল চেলসির। পয়েন্ট পেলেই ইউরোপের সেরা ক্লাব আসরের আগামী মৌসুমে খেলা নিশ্চিত হয়ে যেত তাদের।

৩৭ ম্যাচে ৬৩ পয়েন্ট নিয়ে গোল ব্যবধানে এগিয়ে থেকে তিন নম্বরে আছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। রাতের আরেক ম্যাচে ওয়েস্টহ্যাম ইউনাইটেডের সঙ্গে নিজেদের মাঠ ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ১-১ গোলে ড্র করেছে তারা।

Post a Comment

0 Comments