আমরা প্রমাণ করেছি যে, আমরা মানসিকভাবে উন্নত না: ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী

 আজ শুক্রবার গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী এসব তথ্য জানিয়েছেন।


আরটি-পিসিআর পদ্ধতির মাধ্যমে করোনা পরীক্ষা চালু করতে যাচ্ছে গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতাল। আর আগামীকাল শনিবার থেকে চালু হচ্ছে ‘গণস্বাস্থ্য প্লাজমা সেন্টার’। একইসঙ্গে গবেষণার অংশ হিসেবে নিজেদের উদ্ভাবিত অ্যান্টিবডি কিট দিয়েও পরীক্ষা করবে তারা।

তিনি বলেন, ‘আগামীকাল থেকে আমাদের প্লাজমা সেন্টার চালু হবে। সেটা চালুর পর আগামী ১০ দিনের মধ্যেই আমরা পিসিআর পদ্ধতিতেও পরীক্ষা শুরু করব। আমরা সরকারকে জানিয়েছি যে, আমরা অত্যাধুনিক পিসিআর মেশিন স্থাপন করেছি। এক্ষেত্রে আমাদের এখানে যারা পরীক্ষা করাবেন, তাদের মধ্যে যাদের স্বাস্থ্যবিমা আছে, তাদের জন্য আড়াই হাজার টাকা এবং যাদের স্বাস্থ্যবিমা নেই, তাদের ক্ষেত্রে তিন হাজার টাকা করে ফি হবে।’

প্লাজমা সেন্টারের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমি সবার কাছে আহ্বান জানাচ্ছি, যারা করোনামুক্ত হয়েছে, তারা যাতে এসে রক্ত দিয়ে যায়। অনেক রক্ত দরকার। প্রত্যেকে যাতে এসে রক্ত দিয়ে যায়। রক্তদান করতে কোনো খরচ নেই। তবে, যিনি প্লাজমা নেবেন, তার ক্ষেত্রে যেহেতু অনেক পরীক্ষা-নিরীক্ষার বিষয় আছে, তাই তাদের ক্ষেত্রে সব মিলিয়ে পাঁচ থেকে ছয় হাজার টাকা ফি পড়বে।’

আরটি-পিসিআর পদ্ধতিতে পরীক্ষার জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেছেন, এর অগ্রগতি কতটুকু? জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘তাদের জানিয়েছি। আবেদন কী করব? সরকারকে ভালো কাজে সাহায্য করছি। তাদেরকে জানিয়েছি। লিখিতভাবে জানিয়েছি।’

তারা অনুমোদন না দিলে কোনো জটিলতা আছে কি না, প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘তারা আদালতে যাক। এসব বন্ধ করে দেক। দেশ এমনিতেই বন্ধ হয়ে যাক।’

অ্যান্টিবডি কিট দিয়ে পরীক্ষার ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘সরকার আমাদের কিটের অনুমোদন দেয়নি। আমরা গবেষণার অংশ হিসেবে এই কিট দিয়ে পরীক্ষা করব। আগামীকাল থেকেই অ্যান্টিবডি কিট দিয়ে পরীক্ষা চালু হবে। এই কিট দিয়ে পরীক্ষা করতে আমরা চার শ টাকা করে নেব।’

Post a Comment

0 Comments