কুরবানীর গরু জবাই করতে যেয়ে বিচিতে আঘাত পেল মতলবের মোকলেস মিয়া

গরু জবাই করতে যেয়ে বিচিতে আগাত পেল মতলবের মোকলেস মিয়া।

মুসলিম সম্প্রদায়ের বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদুল আজহা আজ। যথাযথ ধর্মীয় মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে সারা দেশে মুসলিম সম্প্রদায় ঈদুল আজহা উদযাপন করছে আজ। মহান আল্লাহর অপার অনুগ্রহ লাভের আশায় ঈদুল আজহার জামাত শেষে ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা সামর্থ্য অনুযায়ী পশু কোরবানি করেছেন।


ঈদের আনন্দ অনেকটাই ম্লান করে দিয়েছে বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাস। করোনা মহামারি পরিস্থিতি শেষ না হতেই শুরু হল বন্যা। পাশাপাশি আজ থেকে শুরু হচ্ছে শোকাবহ আগস্ট। কিন্তু তার মাঝেই আরো একটি শোকের নিউজ হল আজকে কুরবানী ঈদের নামাজ শেষে গরু জবাই করতে গিয়ে গরুর লাথি খেয়ে নিজের অন্ডকোষো আঘাত পেল মতলবের এনায়েত নগরের মোকলেস মিয়া।

ঘটনাটি ঘটেছে চাঁদপুরের মতলব উওরের এনায়েত নগর গ্রামে। মোকলেস মিয়া অনেক শখ করে কুরবানীর জন্য ঢাকা থেকে গরু কিনে নিয়ে আসলেন কিন্তু তার শখ জলে গেল। নিজের কুরবানীর গরুর লাথি খেয়ে বিচিতে মানে অন্ডকোষে প্রচুর ব্যাথা পেয়েছেন। তবে তার পরিবার পরিজন মলম লাগিয়ে তাকে এখন তিনি সুস্থ করেছেন।

এলাকার লোকজন বলল সে নাকি গরু জবাই করার জন্য দড়ি দিয়ে গরুকে মাটিতে শোয়ানোর জন্য চেষ্টা করছিলেন কিন্তু উওেজিত গরু পিছনের পা দিয়ে লাথ্থি মারলে সেই লাথ্থি তার অন্ডকোষো আঘাত করে। পরে তিনি জোড়ে জোড়ে বলতে থাকেন হায়রে আমার বিচি শেষ, আমার বিচি শেষ, ভাবাগো বাচাঁ! এ নিয়ে এলাকায় এক ধরনের চান্চল্য তৈরি হয়েছে।

তাই সকলের উচিত করোনাভাইরাস উদ্ভূত পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ঈদে কোরবানী করা আর সাবধানে গরু কাটা।কোরবানি পশুর বর্জ্য ঠিক মত অপসারণ করেন এবং পাশাপাশি ছিটান জীবাণুনাশক ও ব্লিচিং পাউডার।

Post a Comment

0 Comments