শোক দিবসে চলচিত্র শিল্পীদের সেলফি নিয়ে যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনার ঝড়



বাংগালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদাতবার্ষিকী  জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে শনিবার।এদিন সারাদেশে দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদা  ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে পালিত হলেও এফডিসিতে দেখা গেছে ভিন্ন চিত্র। শোকদিবসের আয়োজনে বিপুলসংখ্যক শিল্পী উপস্থিত থাকলেও তাদের মধ্যে শোকের ছাপ লক্ষ্য করা যায়নি। বরং হাসি-তামাশা সেলফিতে ব্যস্ত ছিলেন তারকারা। তাদের এসব ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে সমালোচনার ঝড় বইয়ে যাচ্ছে।অনেকে এই ছবি শেয়ার দিয়ে তাদের সমালোচনা করছেন। 


অনুষ্ঠান মঞ্চের ছবিতে অভিনেত্রী মৌসুমী  সুপারস্টার শাকিব খানসহ অনেককে প্রকাশ্যে হাসতে দেখা যায়। এদিকে শিল্পীসমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানের সেলফিতে সাবেক বিএনপি নেতা খলনায়ক মনোয়ার হোসেন ডিপজল কয়েকজনসুন্দরীকে নিয়ে বিজয় চিহ্ন (ভি চিহ্নদেখান। শোকের অনুষ্ঠানে এমন ছবি নিয়ে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়েছেন শিল্পীরা।


এদিকে জায়েদ খান তার ছবির ব্যাখ্যা দিয়ে গণমাধ্যমকে বলেনআমরা সারাদিনই কোরআন খতমমিলাদ মাহফিল আলোচনা নিয়ে ব্যস্ত ছিলাম। যে ছবিটি ভাইরাল হচ্ছে সেটি রাতের ছবি সমিতির কার্যালয়ের ভেতরে। আমাদের চলচ্চিত্রবান্ধবপ্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত পরশুদিন চলচ্চিত্র শিল্পী কল্যাণ ট্রাস্ট আইন ২০২০ অনুমোদন দিয়েছেন।  কারণে আমরাপ্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়েছি এই ছবির মাধ্যমে। আমরা শোক দিবসের অনুষ্ঠানে এমনকি বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতির সামনেওএমন ছবি তুলিনি।



চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টরা বলছেনশোক দিবসের অনুষ্ঠানে প্রতিষ্ঠিত অভিনেতা-অভিনেত্রীদের এমন আচরণ কোনোভাবেই কাম্য নয়।নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক চলচ্চিত্র পরিচালক বলেনমৌসুমীর আদর্শ নিয়ে আগে থেকেই প্রশ্ন রয়েছে। যারা বঙ্গবন্ধুরশাহাদাতবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে বসে হাসাহাসি করতে পারে তারা আসলে বঙ্গবন্ধুকে অন্তর দিয়ে ধারণই করে না। এমনকি মুখে মুখেযতই তারা আওয়ামী লীগার সাজুক না কেনতাদের অন্তরে এখনো পাকিস্তানি ভাবধারা লালন করে।

Post a Comment

0 Comments