গুরুতর নয় মেসির চোট

 দারুণ এক জয়ে নাপোলিকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ আটে জায়গা করে নিয়েছে বার্সেলোনা। তবে দারুণ এ জয়ের মাঝেও বার্সেলোনা সমর্থকদের ভয় পাইয়ে দিয়েছিলেন অধিনায়ক লিওনেল মেসি। প্রথমার্ধে আঘাত পেয়েছিলেন এ আর্জেন্টাইন। শুশ্রূষার পর মাঠে থাকলেও চেনা ছন্দে আর দেখা যায়নি তাকে। তবে আশার খবর গুরুতর নয় তার চোট। বার্সেলোনার সূত্র ধরে এমন সংবাদই প্রকাশ করেছে স্প্যানিশ গণমাধ্যম মার্কা।


ম্যাচের বয়স ৪০ মিনিট। নাপোলির ডি-বক্সের মধ্যে বল নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছিলেন ডিফেন্ডার কালিদু কলিবালি। পেছনে থেকে দৌড়ে এসে বলের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার চেষ্টা করেন মেসি। পেয়েও যান। কিন্তু তখনই ঘটে বিপত্তি। ঠিক তখনই বলে শট নেওয়ার চেষ্টা করেছেন কলিবালিও। তার আগেই বার্সা অধিনায়ক বলের সামনে চলে আসায় শট লাগে তার বাঁ পায়ে। আর সঙ্গে সঙ্গেই মাটিতে লুটিয়ে পড়েন মেসি।

তাতেই ভয় পেয়ে গিয়েছিলেন সবাই। কারণ সাম্প্রতিক সময়ে দলকে প্রায় একাই টেনে নিয়ে যাচ্ছেন মেসি। যা বোঝা গিয়েছে তার ইনজুরির পরই। তার ইনজুরির পর বেশ ভুগতে হয়েছে তার দলকে। তখন ম্যাচের দখল প্রায় এককভাবেই রেখেছিল নাপোলি। মাঠে থাকলেও তখন হাঁটাহাঁটি করেই সময় কাটান মেসি।

আঘাত পাওয়ার পর প্রাথমিক চিকিৎসা নিতে হয় লম্বা সময়। শুরুর দিকে খোঁড়ালেও পড়ে স্বাভাবিকভাবেই দেখা যায় মেসিকে। কিন্তু অধিকাংশ সময়ে মাঠে দাঁড়িয়েই ছিলেন তিনি। তখনই বোঝা গিয়েছিল স্বস্তি বোধ করছিলেন না বার্সা অধিনায়ক।

বড় কিছু না হলেও এখনও ফুলে আছে মেসির বাঁ পা। এর জন্য অবশ্য আলাদা বিশেষ কোনো ধরনের চিকিৎসা নেওয়ার পরিকল্পনা নেই ক্লাবটির। বরফ দিয়ে ও প্রাথমিক চিকিৎসায় ফোলা কমে যাবে বলেই ধারণা করা হচ্ছে।

স্বাভাবিকভাবেই মেসির ইনজুরি প্রসঙ্গ উঠে আসে সংবাদ সম্মেলনেও। তার উত্তরে বার্সা কোচ কিকে সেতিয়েন বলেন, 'মেসি? তার কিছু ব্যথা রয়েছে। ওই চ্যালেঞ্জে কলিবলির কাছ থেকে লিওনেল ভয়ানক একটি আঘাত পেয়েছিল। তবে আমার কাছে মনে হয় না সেটা বড় কোনো সমস্যা। সে এখন ঠিক আছে। আমরা তাকে পর্যবেক্ষণ করে দেখবো।'

এদিন নাপোলি ৩-১ গোলের ব্যবধানে হারানোর সবমিলিয়ে ৪-২ গোলের অগ্রগামিতায় কোয়ার্টার ফাইনালে পা রাখে মেসির দল। তবে সেখানে কঠিন চ্যালেঞ্জই অপেক্ষা করছে। শেষ চারের লড়াইয়ে চলতি মৌসুমের চ্যাম্পিয়ন্স লিগে সবচেয়ে ধারাবাহিক দল বায়ার্ন মিউনিখের বিপক্ষে খেলতে হবে তাদের। তাই সে ম্যাচে মেসিকে সম্পূর্ণ ফিট না পেলে বড় ভোগান্তিতে পড়তে পারে স্প্যানিশ ক্লাবটি।

Post a Comment

0 Comments