বাংলাদেশ ফুটবল টিমের চেয়ে র‍্যাংকিং পিছিয়ে থেকে বিশ্বকাপ ফুটবল ২০১৮ খেলেছিল পানামা

 একসময় বাংলাদেশের ফিফা র‍্যাংকিং ছিল ১২০।আর বর্তমান ফিফা ফুটবল এর রানার্সআপ টিম ক্রোয়েশিয়ার ছিল১১৭।আর পানামা ছিল ১২৫ নাম্বারে তারাও গত ২০১৮ বিশ্বকাপের টিকিট পেয়ছিল অর্থাৎ এই সময়ে ক্রোয়েশিয়া ফিফার‍্যাংকিং  ১০ম স্থানে এসেছে এবং বিশ্বকাপে রানার্সআপও হয়েছে আর বাংলাদেশ।



আমরা পিছিয়েছে ৭৭ ধাপ,অর্থাৎ বাংলাদেশের ফুটবল ইতিহাসে সবচেয়ে লজ্জ্বা জনক অবস্থান ১৯৭।ক্রোয়েশিয়া যদি র‍্যাংকিং বাংলাদেশ থেকে  ধাপ এগিয়ে ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপ এর ফাইনাল খেলতে পারে,পানামা যদি আমাদের নীচে থেকেও ২০১৮বিশ্বকাপ ফুটবল খেলতে পারে সেই হিসেবে আমরা তো অন্তত পক্ষে বিশ্বকাপের বাছাই মেইন দলে খেলতে পারতাম।


কাজী সালাউদ্দিন এর সভাপতিত্বে বাংলাদেশ ফুটবলের কতটুকু অবনতি হয়েছে?১২ বছরে তিনি আমাদের ফুটবলকে কি এনেদিতে পেরেছেনশুধু দিয়েছেন লজ্জা,উপহাস,হাসির খোড়াক এর এক ফুটবল টিম।আজ আমরা গর্ব করে ব্রাজিল,আর্জেন্টিনারনাম নিতাম না।আজ আমরা গর্ব করে বাংলাদেশের নাম মুখে নিতাম।কিন্তু আমাদের সেই আশা,আকাঙ্ক্ষা মাটিয়ে মিশিয়েদিয়েছে বর্তমান বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন।কিছুদিন পরে বাফুফের নির্বাচনআবারও প্রতিদ্বন্দ্বিতার ঘোষণা দিয়েছেনসালাউদ্দিন। যদিও গত নির্বাচনে তিনি বলেছিলেন এটাই আমার শেষ নির্বাচন। কিন্তু তিনি আবারও নির্বাচন করবেনবাংলাদেশ ফুটবলের এই যমদূত।


উনি একবার বলেছিলেন বাংলাদেশ ২০২২ বিশ্বকাপে খেলবে।কিন্তু এখন বলছেন ২০২৬ বিশ্বকাপে খেলতে পারে।লাগামহীনদুর্নীতির কারণে দেশের ফুটবল আজ তলানিতে।দুর্নীতি বাফুফের সবার নেশা হয়ে গেছে।


তাই সময় এসেছে উনাকে বয়কট করার,সময় এসেছে আন্দোলন করার।দেশের সব ফুটবলপ্রেমী ভাইয়েরা আওয়াজতুলুন,সালাউদ্দিনকে বয়কট করুন।তাাই আমি এই বিষয়ে একজন ফুটবল প্রেমী হিসেবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী  মাননীয় যুব ক্রীড়ামন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।প্লিজ আপনার দেশের ফুটবলকে বাচাঁন।

Post a Comment

0 Comments