জয় দিয়েই ওয়ানডে সুপার লিগ শুরু করলো অস্ট্রেলিয়ার

 


আইসিসি ওয়ানডে সুপার লিগে শুভ সূচনা করেছে অস্ট্রেলিয়া। শুক্রবার রাতে দারুণ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ম্যাচে বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডকে ১৯ রানে হারিয়েছে তারা।

দেড়শ ছোঁয়ার আগে ৫ উইকেট খুইয়ে ফেলা অস্ট্রেলিয়াকে চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ পাইয়ে দিলেন মিচেল মার্শ ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। লক্ষ্য তাড়ায় শেষ পর্যন্ত লড়াই চালালেন ইংল্যান্ডের স্যাম বিলিংস। তবে ম্যাচসেরা জস হ্যাজেলউড ও অ্যাডাম জ্যাম্পার বোলিং নৈপুণ্যের বিপরীতে বিফলে গেল তার প্রথম আন্তর্জাতিক সেঞ্চুরি।

অস্ট্রেলিয়ার ইনিংসের শুরুতে ডেভিড ওয়ার্নার ফেরেন জোফ্রা আর্চারের ডেলিভারিতে বোল্ড হয়ে। এরপর মার্ক উড ও আদিল রশিদ জ্বলে ওঠায় নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে দলটি।

ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে ২৯৪ রান তোলে অজিরা। জবাবে পুরো ওভার খেলে স্বাগতিকরা স্কোরবোর্ডে তুলতে পারে ৯ উইকেটে ২৭৫ রান।

সাতে নেমে ৭৭ রান করা ম্যাক্সওয়েলকে থামান আর্চার। তার ৫৯ বলের ইনিংসে ছিল সমান ৪টি করে চার ও ছয়। উডের শিকার হওয়ার আগে ১০০ বলে ৬ চারে ৭৩ রান আসে মার্শের ব্যাট থেকে।

জবাব দিতে নেমে ইংল্যান্ডের শুরুটা হয় হতাশায় মোড়ানো। ৫৭ রানের মধ্যে ৪ উইকেট হারায় তারা। এরপর ওপেনার জনি বেয়ারস্টো ও বিলিংসের ব্যাটে ঘুরে দাঁড়ায় দলটি। চাপ সামলে সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে হাত খুলে খেলতে থাকেন তারা।

শেষ ১৫ ওভারে ৬ উইকেট হাতে নিয়ে জয়ের জন্য ইংলিশদের প্রয়োজন দাঁড়ায় ১২৬ রান। কিন্তু ৩৬তম ওভারের দ্বিতীয় বলে জ্যাম্পা বেয়ারস্টোকে বিদায় করলে খেই হারায় তারা। পরবর্তীতে আর কেউ সঙ্গ দিতে পারেননি বিলিংসকে, গড়ে ওঠেনি কোনো জুটি।

ক্যারিয়ারসেরা ইনিংসে ১১০ বলে ১১৮ রান করেন বিলিংস। তার ইনিংসে ছিল ১৪ চার ও ২ ছক্কা। বেয়ারস্টোর ব্যাট থেকে আসে ৮৪ রান। ১০৭ বলের ইনিংসে ৪টি করে চার ও ছয় হাঁকান তিনি।

তিন ম্যাচের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে অস্ট্রেলিয়া।

আগামীকাল রবিবার একই ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত হবে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডে।

Post a Comment

0 Comments