দাবানলে লাল-কমলা রং ধারন করেছে যুক্তরাষ্ট্রের আকাশ, ঘর ছাড়ছে লাখো মানুষ

 


সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ‘ভয়ঙ্কর সুন্দর’ এ পরিবেশের ছবি শেয়ার করেছেন বহু মানুষ। কেউ কেউ এ দৃশ্যকে মঙ্গলগ্রহের সঙ্গে তুলনা করছেন, কেউ বলছেন ‘ব্লেড রানার ২০৪৯’ মুভির মতো, কেউ আবার ‘স্ট্রেঞ্জার থিংস’ সিরিজের সঙ্গে তুলনা করেছেন।


যুক্তরাষ্ট্রের পশ্চিমাঞ্চলে রেকর্ডভাঙা দাবানলে এ পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছেন অন্তত ১৫ জন। আগুনের হাত থেকে বাঁচতে ঘর ছাড়ছেন লাখ লাখ মানুষ। ইতোধ্যেই পুড়ে ছাই হয়ে গেছে হাজার হাজার হেক্টর বনভূমি, ধ্বংস হয়েছে অসংখ্য ঘরবাড়ি। তবে বিপদ এখানেই শেষ নয়। দাবানলের কারণে সৃষ্ট ধোঁয়ায় ঢেকে আছে দেশটির উত্তরাঞ্চলের বিশাল এলাকা। ফলে গোটা আকাশ লাল-কমলা বর্ণ ধারণ করে সৃষ্টি করেছে এক রহস্যময় পরিবেশ।



যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল ওয়েদার সার্ভিস জানিয়েছে, ওয়াশিংটন, ওরেগন, ক্যালিফোর্নিয়া, ইদাহো, নেভাডা, অ্যারিজোনা, উটাহের বেশিরভাগ এলাকা গুরুতর আবহাওয়া ঝুঁকিতে রয়েছে।


দেখতে সুন্দর হলেও এমন আবহাওয়া খুব একটা স্বাস্থ্যকর নয়। বেশ কিছু এলাকায় ধোঁয়ার কারণে সৃষ্ট দূষণ বিপজ্জনক মাত্রায় পৌঁছে গেছে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

তবে চলতি সপ্তাহের দাবানলে সবচেয়ে বেশি ভুগছে ওরেগন। গত তিন দশকের মধ্যে সেখানে এমন বিপদ আর দেখা যায়নি। ইতোমধ্যেই দাবানলের আগুন হানা দিয়েছে অঙ্গরাজ্যটির অন্তত পাঁচটি শহরে। ফলে ঘর ছাড়তে বাধ্য হয়েছেন স্থানীয় মানুষজন।

শুষ্ক আবহাওয়া সত্ত্বেও ক্যালিফোর্নিয়াতে নজিরবিহীন গতিতে ছড়াচ্ছে দাবানলের আগুন। সান ফ্রান্সিসকো বে এরিয়া এবং স্যাক্রামেন্তো উপত্যকার পূর্বাঞ্চলে গত বুধবার এত বেশি ধোঁয়ায় আকাশ ছেয়েছিল যে সেসময় আগের দিনের তুলনায় একলাফে তাপমাত্রা ২০ থেকে ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াস কমে গিয়েছিল।

আগুনের কবলে ওয়াশিংটনে প্রাণ হারিয়েছে এক বছরের একটি শিশু, গুরুতর আহত হয়েছে তার বাবা-মা। এছাড়া উত্তর ক্যালিফোর্নিয়ায় দাবানলে প্রাণ কেড়েছে অন্তত ১০ জনের, এখনও নিখোঁজ রয়েছেন ১৬ জন। ভয়াবহ এ দাবানল নিয়ন্ত্রণে আনতে দিনরাত প্রাণপণ লড়ে যাচ্ছেন ১৭ হাজারেরও বেশি দমকলকর্মী।

ওরেগনের গভর্নর কেট ব্রাউন জানিয়েছেন, গত কয়েকদিনে অঙ্গরাজ্যটিতে প্রায় নয় লাখ একর বনভূমি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে, যা অন্য সময় গোটা বছর জুড়ে দাবানলের ক্ষয়ক্ষতির সমান।


Post a Comment

0 Comments