লুডু খেলার সময় ভাবি বলে উঠলেন ‘আমাকে আর কত খাবি,আমার ছোট বোনকে খা!


গ্রামে-গন্জে শুরু করে সব জায়গায় এখন চলছে লুডু খেলার চল। বিশেষ করে অনলাইনে মানুষ দুরদুরান্ত থেকে বসে বসে লুডুখেলে। আর ভাবির সাথে প্রায়ই লুডু খেলতে বসে এমন যুবকের সংখ্যা বাংলাদেশে অভাব নেই। প্রতিটি ঘরে ঘরে ভাবীদের সাথেএকদান লুডু খেলতে যুবকেরা যেন মুখিয়ে থাকেন।

কখন ভাবী ডাকবেন ডেকে বলবেন, ‘চল লুডু খেলি।’ আর তখন  ভাবীর সাথে খেলতে বসে যাবে।




কিছু কিছু দেবর আছে সকাল সন্ধ্যা রাত যখন ভাবীরা ডাক দেন তখনই লুডুস্টার খুলে বসে পড়েন এসব ভাবীর আদর্শ দেবররা।হারুক জিতুক তাতে তাদের কোন সমস্যা নাই। তারা খালি ভাবীর সাথে খেলতে পারলে  হলো।


তেমন  ভাবীর এক আদর্শ দেবর হলো আজগর। যার জীবনের একমাত্র লক্ষ্যে  হলো ভাবীর সাথে লুডুস্টারে লুডু খেলা।ভাবীর সাথে লুডু খেলার কারনে আজগরের গার্লফ্রেন্ড তাকে ছেড়ে চলে গেছেআজগর পরীক্ষায় ফেল করেছেবাসায় মায়েরহাতে পেঁদানি খেয়েছে। তবুও এই আজগর হারামজাদা ভাবীর সাথে লুডু খেলা ছাড়ে নি।



সে লুডু খেলায় এতো বেশি ইচ্ছুক ভাবীর সাথে লুডু খেলতে আজগর সবকিছু কর‍তে পারে। সবকিছু। বন্ধুদের ছেড়ে দিয়েছে।খালি ভাবীর সাথে লুডু খেলবে বলে। ভাবীর কয়েন না থাকলে আদর্শ দেবর আজগর হারামজাদা ইচ্ছা করে হেরে গিয়ে ভাবীকেকয়েন দিয়ে আসে। তবুও ভাবীর সাথে তার খেলা চাই। চাই  চাই!


গতকাল আজগর  লুডু খেলতেসে ভাবীর সাথে। খেলা একদম চরম উত্তেজনা বিরাজ করছিল। তখন সে ভাবীর অনেক গুলোগুটি খেয়ে ফেলল।খেলতে খেলতে এক পর্যায়ে ভাবী রাগ করে বলে উঠলেন, ‘কিরে আজগইর‍্যা এই আমাকে আর কত খাবি।আর কতবার খেলে তোর শখ মিটবে রে তোর?’

আজগর তো ভাবীর কথা শুনে অজ্ঞান হয়ে যাবার উপক্রম।ভাবীর কথা বুঝতে আবার জিজ্ঞেস করে।

আমার গুটি আর কত খাবি। আমার ছোট বোনটারে একটু খা। তার গুটি  তো পেকে গেছে ‘ বলে ভাবী লেফট মেরে চলে যায়।

Post a Comment

0 Comments