উত্তরবঙ্গের মানুষদের মফিজ বলা হয় কেন?


উত্তরবঙ্গের গাইবান্ধা জেলার প্রত্যন্ত গ্রামের স্বল্পশিক্ষিত অত্যন্ত সৎ ড্রাইভার ছিলেন মফিজ। তার শেষ জীবনের সঞ্চয় এবং মাবাবার দেয়া সামান্য জমি বিক্রয় করে ঢাকা রুটের পুরাতন বাস ক্রয় করে ঢাকা-গাইবান্ধা রুটে বাসটি চালু করলেন।



 


গরীব-দরদী মফিজ সাহেব দিনমজুর লোকদের স্বল্প ভাড়ায় ঢাকা নিয়ে যেতেন।এক সময় বয়সের ভারে মফিজ সাহেব অন্যড্রাইভার দিয়ে বাস চালানো শুরু করলেন। 


কিন্তু দিন মজুর শ্রেণীর লোকেরা ভাড়া সাশ্রয় এর জন্য তাঁর বাড়িতে ধনা দেওয়া শুরু করলো।তাদের উপকারের জন্য সাদাকাগজে  মফিজ লিখে সুপারভাইজার কে দিতে বলতেন এবং বাসের ছাদে নামমাত্র ভাড়ায় ঢাকা যাতায়াতের সুবিধা করে দেয়ারব্যবস্হা করতেন। 


বাসের সুপারভাইজার মফিজ স্বাক্ষর যুক্ত কাগজ সংগ্রহ করে কম ভাড়া আদায় করতেন। 


তাই বাসের ছাদে উচ্চস্বরে সুপারভাইজার বলতেন,কয়জন মফিজ আছো ছাদে?অথ্যাৎ কয়টা মফিজের স্লিপ আছে?


আর এভাবে গরিবের উপকারী বন্ধু মফিজ শব্দটি চালু হয়।আজ আমরা ঠাট্টাকরে মফিজ শব্দটি উচ্চারণ করি।


কিন্তু বুকে হাত দিয়ে বলেন!"মফিজ "হওয়ার যোগ্যতা আপনার আমার কি আছে??? 


এখন আসুন মূল কথায়ঃব্যাকডেটেড পিছিয়ে থাকা জনগণ ভাইভা বোডে নব্বই ডিগ্রি এ্যাংগেলে ভ্র-কুঁচকে বলা হয়"...!


তোমার বাড়ি উত্তরবঙ্গে।তারপর যা হবার তাই হয়।একটা কমন চিত্র। ব্যাপারটি কি সত্যি  রকম?আসলেই কি সত্যিব্যাকডেটেড।যাদের মানসিকতা এমন তারা কি আপডেটেড...?


তাই উত্তরবঙ্গের মানুষকে মফিজ বলার আগে এই কথাগুলো একবার ভেবে দেখবেন।

Post a Comment

0 Comments